বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে এক তরুণীকে ধর্ষণ করেন ছাত্রদল সভাপতি মামুন অর রশীদ । ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে ধর্ষিতা মামলা করেন । ধর্ষক এখনও গ্রেফতার হননি।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার চর এককরিয়া ইউনিয়ন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সভাপতি মামুন অর রশীদ বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে এক তরুণীকে ধ- করেন। এই ঘটনায় গত ১৭ সেপ্টেম্বর ওই তরুণী বাদী হয়ে ঢাকার বাড্ডা থানায় মামলা দায়ের করেন।

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সামসুল ইসলাম মামলার তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তরুণীর অভিযোগ, ১ বছর আগে মামুন তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। ২ সন্তানের জনক মামুন দীর্ঘদিন মোবাইল ফোনে কথা বলার পর গত ১ জুলাই তরুণীর ঢাকার কদমতলী এলাকায় গিয়ে দেখা করেন। এ সময় ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে বিভিন্ন স্থানে ঘোরাফেরার পর বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তাকে ৬৮ নম্বর মধ্য বাড্ডা, বেপারী পাড়ার আব্দুল মান্নানের বাড়ির ৫ম তলায় মামুনের এক বন্ধুর ফ্লাটে নিয়ে যান।

তাদের দুজনকে বাসায় রেখে বন্ধু তার কর্মস্থলে গেলে ফাঁকা বাসায় ওই তরুণীকে ধ- করেন মামুন। পরে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ওই দিন বিকেলে ওই তরুণীকে তার বাসার কাছাকাছি পৌঁছে দিয়ে সটকে পড়েন মামুন। তারপর থেকে আর কোনো যোগাযোগ করেননি। ২ মাস অপেক্ষা করে গত ১৭ সেপ্টেম্বর বাড্ডা থানায় মামলা দায়ের করেন তরুণী।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা বলেন, মামলাটির চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আসামির পক্ষ হয়ে বেশ কয়েকজন ছাত্রদল নেতা আমাকে ফোন করেন।

ওই তরুণী বলেন, আমি রাজনীতি করিও না, বুঝিও না। কিন্তু আমি একজন নারী, প্র’তারিত হয়েছি। আমার পক্ষে কেউ একটি শব্দও উচ্চারণ করল না। উল্টো মামলা তুলে নিতে বরিশালের ছাত্রদল সভাপতি মাহফুজ আলম মিঠু আমাকে ফোন করে হুম’কি দিচ্ছেন।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, ওই তরুণী ঢাকায় মামলা দায়েরের পর বরিশাল জেলা ও মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদল নেতাদের কাছে ইউনিয়ন ছাত্রদল সভাপতি মামুন অর রশীদের বিরু’দ্ধে সাংগঠনিকভাবে বিচার দাবি করে অভিযোগ দেন। এ সময় মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক সালাউদ্দিন পিপলু তরুণীকে জানান, তাদের কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ। তাই ইউনিয়ন ছাত্রদল সভাপতির বিরু’দ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না।

জেলা ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান বলেন, উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি মেয়াদ শেষ। আর ইউনিয়ন কমিটির নেতার বিরু’দ্ধে ব্যবস্থা জেলা কমিটি নিতে পারে না।

অপরাধীর পক্ষে ছাত্রদল নয়, এমন দাবি করে বরিশাল জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহসভাপতি তারেক আল ইমরান বলেন, জেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পক্ষালম্বনের কারণে অভিযুক্ত ইউনিয়ন ছাত্রদল সভাপতির বিরু’দ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া যায়নি।

সব অভিযোগ অ’স্বীকার করে জেলা ছাত্রদল সভাপতি মাহফুজ আলম মিঠু বলেন, আমি রাজনৈতিক প্রতিহিং’সার শি’কার। কোনো নারীকে হুম’কি দেইনি।

তথ্যসুত্র