অসহায় বিধবা নারীকে একা পেয়ে ধর্ষণ করেন সাইফুল ইসলাম । ৫ মে ২০২১ তারিখে মামলার ভিত্তিকে  সাইফুল ইসলাম কে গ্রেফতার করেন পুলিশ। আদালতের বিচার অনুযায়ী ধর্ষণ এখন কারাগারে আছেন।

ধর্ষক সাইফুল ইসলাম – ধর্ষক ডাটাবেজ

বৃহস্পতিবার (৬ মে) সকালে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়।
সাইফুল উপজেলার গোবিন্দপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের মো. আব্দুর রহমান মিজির ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ২৫ মার্চ সন্ধ্যায় বিধবা নারী পাশের একটি ঘরে পান খেতে যান। এ সময় অভিযুক্ত সাইফুল ওই নারীকে ঘরে একা পেয়ে ধর্ষণ করেন। এ সময় নারীর চিৎকারে সাইফুল পালিয়ে যান। পরে বিষয়টি স্থানীয় কয়েকজন সমাধান করে দিবে বলে আশ্বাস দেন। এতে অসহায় পরিবারটি দীর্ঘদিন চুপ থাকে। কিন্তু দীর্ঘদিন কোনো বিচার না পেয়ে ৫ মে রাতে ভুক্তভোগী নারীর মা বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ওই গ্রামে অভিযান চালিয়ে ধর্ষক সাইফুল ইসলামকে গ্রেফতার করে।

এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহম্মদ শহীদ হোসেন জানান, গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদেই তিনি ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করেছেন। সকালে তাকে আদালতে পাঠানো। সেখানেও তিনি ১৬৪ ধারায় ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। এর আদালতের বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

তথ্যসুত্র